Monday, 21 October, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৬ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

বিশ্বঐতিহ্য বিপন্ন তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে না সুন্দরবন

বিপন্ন তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে না সুন্দরবন
বিপন্ন বিশ্বঐতিহ্যের তালিকা থেকে সুন্দরবনের নাম বাদ দিয়েছে ইউনেস্কোর বিশ্বঐতিহ্য কমিটি। গতকাল বৃহস্পতিবার আজারবাইজানের রাজধানী বাকুতে অনুষ্ঠিত কমিটির ৪৩তম সভায় ২১ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি সর্বসম্মতভাবে এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। ফ্রান্সে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সভায় বিশ্বঐতিহ্য কমিটিকে সুন্দরবন রক্ষায় প্রচেষ্টা সম্পর্কে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেওয়া হয়। সেখানে ২১ সদস্যবিশিষ্ট বিশ্ব ঐতিহ্য কমিটিতে বিষয়টি বিস্তারিত আলোচনার পর সর্বসম্মতভাবে সুন্দরবনকে বিপন্ন বিশ্বঐতিহ্যের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত না করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এ ছাড়া কমিটিতে সুন্দরবন সংরক্ষণে বাংলাদেশ সরকারের গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপেরও প্রশংসা করা হয়।

সুন্দরবনের পাশে রামপাল কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প নির্মাণ, বনের ভেতর দিয়ে জাহাজ চলাচলসহ বিভিন্ন কারণে সুন্দরবনের পরিবেশ ও প্রতিবেশ হুমকির মুখে- দীর্ঘদিন ধরেই এমন অভিযোগ জানিয়ে আসছিল জাতিসংঘের অন্তর্ভুক্ত সংস্থাটি। এ কারণে বিশ্বঐতিহ্য কমিটি সুন্দরবনকে বিপন্ন বিশ্বঐতিহ্যের তালিকায় অন্তর্ভুক্তি বিষয়ে শুনানি ছিল গতকাল।

কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, এ বছর বাংলাদেশ সরকার বিশ্বঐতিহ্য কমিটির বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধি দলকে আমন্ত্রণ জানাবে এবং আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যে প্রতিনিধি দল হালনাগাদ তথ্য সংবলিত প্রতিবেদন জমা দেবে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, কিউবা, বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা এবং চীন সুন্দরবনকে বিপন্ন বিশ্বঐতিহ্যের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত না করার নতুন সিদ্ধান্ত উপস্থাপন করে। আলোচনাকালে পরিবর্তিত সিদ্ধান্ত প্রস্তাবকারী কিউবা, বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা এবং চীন ছাড়াও আজারবাইজান, ব্রাজিল, ইন্দোনেশিয়া, কুয়েত, তিউনিসিয়া, তানজানিয়া, বুরকিনাফাসো, উগান্ডা, জিম্বাবুয়ে ও পর্যবেক্ষক রাষ্ট্র হিসেবে ভারতসহ ১৫টি সদস্য রাষ্ট্র সরাসরি এ সিদ্ধান্তের পক্ষে অবস্থান নিয়ে বক্তব্য প্রদান করে।

প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিষয়ক উপদেষ্টা তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী ইউনেস্কো কমিটিকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, এটা বাংলাদেশ সরকারকে জনস্বার্থে যথাযথ উন্নয়নমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ ও বাস্তবায়নে উৎসাহিত করবে। তিনি বলেন, সুন্দরবন বাংলাদেশের গর্ব। এর সুরক্ষায় সরকার প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ গ্রহণ করবে।

ইউনেস্কোর এ সভা আজারবাইজানের রাজধানী বাকুতে ৩০ জুন শুরু হয়েছে এবং শেষ হবে আগামী ১০ জুলাই। সভায় বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী। প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যদের মধ্যে রয়েছেন ফ্রান্সে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ও ইউনেস্কোতে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি কাজী ইমতিয়াজ হোসেন। সুন্দরবন ১৯৯৭ সালে ইউনেস্কো বিশ্বঐতিহ্যের তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়।

Developed by :