Monday, 21 October, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৬ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

কমলগঞ্জে সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে বস্ত্র বিতরণ করলো মনিপুরী ব্লাড ব্যাংক

কাগজ রিপোর্টঃ ৪ঠা অক্টোবর শুক্রবার পূজার খুশিতে শিশুরা(সিজন-২) ইভেন্টে পূজার নতুন জামা পেল কমলগঞ্জ উপজেলার সুবিধাবঞ্চিত ৬০ টি শিশু। কমলগঞ্জ পৌরসভার মৃৎশিল্প পল্লী কুমারপাড়া এলাকায় আজ দুপুরে দরিদ্র শিশুদের মাঝে “মণিপুরী ব্লাড ব্যাংক” এর উদ্যোগে এই বস্ত্র বিতরণ অনুষ্টানে সভাপতিত্বকরেন সংগঠনের সমন্নয়ক রাকুল সিংহ । প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি বিশ্বজিৎ রায় ।
বিকাল ২টায় মাধবপুর ইউনিয়নের শিববাজারে এলাকার শিব মন্দিরে মালাকার ও রবিদাস সম্প্রদায়ের শিশুদের মাঝে বস্ত্র বিতরণ কালে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মাধবপুর ইউনিয়ন পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি শ্যামসুন্দর সিংহ, বিশেষ অতিথি ছিলেন সহকারী প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি কমলগঞ্জ উপজেলা শাখার সম্পাদক রানা রঞ্জন সিনহা, ও সংগঠনের প্রতিষ্টাতা সদস্যা প্রিয়ংকা সিনহা। পরবর্তীতে তিলকপুর উত্তরপল্লীর শব্দকর এলাকায় পৃথকভাবে এ বস্ত্র বিতরণ হবে। সমগ্র উপজেলায় সনাতন ধর্মাবলম্বী মোট ৬০ জন দারিদ্রপীড়িত শিশুদের মাঝে নতুন জামা বিতরণ করা হয়। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা। শারদীয় দুর্গাপূজার উৎসবে দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের মাঝে “পূজার খুশিতে শিশুরা (সিজন- ২)” ইভেন্টের মাধ্যমে আনন্দ ছড়িয়ে দিয়েছে যা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন “মণিপুরী মানবকল্যাণ সংস্থা” দ্বারা পরিচালিত প্রজেক্ট “মণিপুরী ব্লাড ব্যাংক” । মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলায় সনাতন ধর্মাবলম্বী শিশুর মাঝে পূজার নতুন জামা বিতরণ করেছে তারা। শুধু এই বস্ত্র বিতরণই নয় স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাটি বিভিন্ন প্রজেক্ট এর মাধ্যমে দরিদ্র মানুষদের অবকাঠামোগত উন্নয়ন নিয়েও কাজ করে যাচ্ছে। সমাজের বঞ্চিত মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে তারা সর্বদা বদ্ধ পরিকর। সেখানে তাদের শুভাকাঙ্ক্ষীরা বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করেন। ঈদ উপলক্ষে শিশুদের মাঝে নতুন জামা ও শীত বস্ত্র বিতরণ সহ রক্তদানের সচেতনতা ও নতুন রক্তদাতা তৈরি এবং উৎসাহিতকরণ নিয়ে কাজ করে সংগঠনটি। পূজার খুশিতে শিশুরা এর ইভেন্ট সমন্বয়ক ‘শিশির সিনহা সৌরভ’ জানান- মানুষের কল্যাণে আমাদের এই সংগঠন। যা দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষের পাশে দাড়িয়ে তাদেরকে উন্নয়নের পথে এগিয়ে যেতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। আমি বিশ্বাস করি, ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র চেষ্টা যখন সম্মিলিতভাবে ভাল কিছু করার উদ্যোগ গ্রহণ করে এবং তা মানবতার পক্ষে থাকে তখন সৃষ্টিকর্তাও সন্তুষ্ট হন। নিজের অবস্থান থেকে মানবতার পক্ষে কাজ করবেন- এটাই আমার আহবান। সবাইকে জানাই শারদীয় শুভেচ্ছা।” আর এই ইভেন্ট নিয়ে যারা সহযোগিতা করেছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ভালোবাসা এবং সেই সাথে বাংলাদেশের প্রত্যেক সামাজিক সংগঠনকে ঈদের ইভেন্টের মতো পূজার ইভেন্টে সবাই এগিয়ে আসার জন্য অনুরোধ জানাই।

Developed by :