Sunday, 17 November, 2019 খ্রীষ্টাব্দ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

কমলগঞ্জে ছুরিকাঘাতে আহত ছাত্রলীগের সাবেক সম্পাদক শাহেদের অবস্থা সংকটাপন্ন


সংবাদদাতা:
ছাত্রলীগের দুই কর্মীর মারামারির জের ধরে মৌলভীবাজারে কমলগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সম্পাদক শাহেদুল আলম(৪০)কে ছুরিকাঘাত করে গুরুত্ব আহত করা হয়েছে। গুরত্ব আহত ছাত্রনেতার অবস্থা অনবনতি হওয়ায় রাত ২টায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল হাসপাতাল থেকে এয়ার এ্যাম্বুলেন্সে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়। বর্তমানে বেসরকারী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তবে তার অবস্থা সংকাপন্নবলে পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে। আহত ছাত্র নেতা কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের সদস্য ও কমলগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যানের ভাগ্নে। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা দেখা দিলে পুলিশ মেতায়েন করা হয়। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় হামলাকারীদের বিচারের দাবীতে উপজেলা চৌমুহনীতে এক বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্টিত হয়। এদিকে হামলাকারী ছাত্রলীগ কর্মী জাকের মিয়াসহ তার পরিবারের সদস্যরা আত্মগোপনে রয়েছেন। পুলিশ হামলাকারীদের গ্রেফতারে গ্রেফতারের চেষ্টা চালাচ্ছে।

 


জানা যায়,বৃহস্পতিবার বিকাল ২টায় উপজেলা চৌমুহনীতে বাড়ি ফেরার সময় কমলগঞ্জ সরকারী কলেজের দুই ছাত্রলীগ কর্মীদের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এ জের ধরে উপজেলা চৌমুহনীতে বিকাল সাড়ে ৫টায় তার ব্যবসায়ী প্রতিষ্টানে এসে কমলগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সম্পাদক শাহেদুল আলমকে একা পেয়ে পৌরসভার নছরতপুর গ্রামের শওকত আলীর ছেলে ছাত্রলীগ কর্মী জাকের মিয়া(২২) শরীরে বিভিন্ন স্থানে ছুড়িকাঘাত করে পালিয়ে যায়।
স্থানীয় এলাকাবাসী গুরুত্বর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে কমলগঞ্জ উপজেলা স্থাস্থ্য কমপ্লেক্স নিয়ে গেলে অবস্থার অবনতি হলে আশংকাজনক অবস্থায় মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক এর পরার্মশে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তবে রাতে গলার ঘারে স্থানে রক্তকরণ হলে রাত ২টায়্ চিকিৎসকদের পরার্মশে এয়ার এ্যাম্বুলেন্সে করে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়। বর্তমানে একটি বেসরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও অবস্থা সংকটাপ্ন্নবলে ঘনিষ্টজনদের সূত্রে জানা গেছে।
এদিকে তার আহতের খবর শুনে এলাকাবাসীর মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। চৌমুহনীতে উত্তেজিত এলাকাবাসী হামলাকারী জাকের মিয়ার চাচাদের দোকানে ভাংচুর করে।
খবর পেয়ে কমলগঞ্জ থানা পুলিশের পুলিশ উপ-পরিদর্শক চম্পক দাম নেতৃত্বে একটি দল ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
ছাত্রলীগের সাবেক সম্পাদকের উপর হামলার প্রতিবাদে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় উপজেলা চৌমুহনীতে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিল শেষে সংক্ষিপ্ত প্রতিবাদ সভায় দ্রুত হামলাকারীকে গ্রেফতারের দাবী জানান। সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা যুবলীগের সাবেক সম্পাদক মোশাহিদ আলী, সাবেক কাউন্সিলর মুজিবুর রহমান, পৌর যুবলীগের নেতা মসুদ আহমদে, রাসেল মতলিব তরফদার প্রমুখ। এলাকায় থমথমে বিরাজ করছে।
এ ব্যাপারে কমলগঞ্জ থানা ওসি মো: আরিফুর রহমান বলেন, এলাকার শান্ত রয়েছে। এখনো কোন অভিযোগ পাইনি। তবে হামলাকারী কে ধরতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by :