Friday, 21 February, 2020 খ্রীষ্টাব্দ | ৯ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ |

বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী : কাল উদ্বোধন শমশেরনগর স্থায়ী গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট

কাগজ রির্পোট: ১৯৯১ সালে এ গফুর গোল্ডকাপ ফুটবল প্রতিযোগিতার মাধ্যমে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের শমশেরনর চা বাগান মাঠে শুরু হয় শমশেরনগর স্থায়ী আমন্ত্রণ মূলক গোল্ডকাপ ফুটবল প্রতিযোগিতা। আজ শনিবার ১১ জানুয়ারি) বিকেল ৩টা থেকে ঐতিহ্যের তিন দশকের শমশেরনগর স্থায়ী গোল্ডকাপ আমন্ত্রণ মূলক ফুটবল প্রতিযোগিতা ২০২০ শুরু হচ্ছে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শত বার্ষিকী উপলক্ষে এবার ফুটবল আসরকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর নামে উৎসর্গ করা হয়েছে।

শমশেরনগর খেলেয়াড় কল্যাণ সমিতির আয়োজনে এ ফুটবল আসরে প্রধান অতিথি হিসিবে উপস্থিত হয়ে প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করবেন মৌলভীবাজার -৪ আসনের সাংসদ উপাধ্যক্ষ ড. এম এ শহীদ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন কমলগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান, মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মিছবাউর রহমান, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল সার্কেল) আশরাফুজ্জামান, কমলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশেকুর হক, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান রাম ভজন কৈরী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বিলকিছ বেগম, কমলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আরিফুর রহমান, কমলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আছলম ইকবাল, সাধারণ সম্পাদক এড. এ এস এম আজাদুর রহমান, মৌলভীবাজার জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি মোসাদ্দেক আহমদ, শমশেরনগর চা বাগান ব্যবস্থাপক জাকির হোসেন,শমশেরনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. জুয়েল আহমদ প্রমুখ।
উল্লেখ্য, ১৯৯১ সালে সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুর গফুরের সহায়তায় এ গফুর গোল্ড কাপ ফুটবল আসরের মাধ্যমে শমশেরনগর স্থায়ী গোল্ডকাপ ফুটবল আসর শুরু হয়েছিল। সে বছরই শমশেরনগর খেলোয়াড় কল্যাণ সমিতি গঠনের পর থেকে স্থানীয় ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতায় গত তিন দশক ধরে প্রতি বছর শমশেরনগর স্থায়ী গোল্ডকাপ পুটবল প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ১৯৯৭ সালে ভারতের আসাম রাজ্যের শিলচর গ্রীণ হর্নেট ক্লাবসহ সিলেট বিভাগের চার জেলার মোট ১৬টি দল অংশ নিয়েছিল। এবারও সিলেট বিভাগের চার জেলার দল, নরিসিংদির একটি দল ও স্বাগতিক দুটি দলসহ মোট ১৬ দল এপ্রতিযোগিতায় অংশ নিচ্ছে।
শমশেরনগর খেলোয়াড় কল্যাণ সমিতির সভাপতি আব্দুল মছব্বির বলেন, এ সমিতি স্থানীয় সম্প্রীতির অটুট বন্ধন হিসেবে কাজ করে। ফুটবল প্রতিযোগিতা শুরুর হলে পুরো মাস জুড়ে স্থানীয়ভাবে উৎসব মুখর পরিবেশ বিরাজ করে। ইতিমধ্যেই সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। প্রতি দিন গড়ে ৫ হাজার দর্শক মাঠে উপস্থিত হয়ে খেলা উপভোগের ব্যবস্থা করা হয়েছে। সার্বিক নিরাপত্তার স্বেচ্ছাসেবকদল ছাড়া পুলিশ প্রশাসনের কড়া নজরদারি রয়েছে।

Developed by :