Saturday, 31 October, 2020 খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

আরো ৫ জনের প্রাণ নিল করোনা, শনাক্ত ৫৫২

কাগজ রিপোর্ট: গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণে আরো পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন শনাক্ত হয়েছে ৫৫২ জন। এ নিয়ে দেশে করোনায় এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে ১৭৫ জনের। আর সব মিলিয়ে শনাক্ত হয়েছে আট হাজার ৭৯০ জন। আজ শনিবার (২ মে) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে সরকারি বুলেটিনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। বুলেটিন প্রকাশে অংশ নেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা। ডা. নাসিমা বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা সংক্রমণে দেশে আরো পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুবরণকারীরা তিনজন পুরুষ এবং দুইজন নারী। এঁদের সবাই ঢাকার। এ নিয়ে করোনায় দেশে এ পর্যন্ত ১৭৫ জন মৃত্যুবরণ করেছেন। ডা. নাসিমা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ছয় হাজার ১৯৩টি। আর নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে পাঁচ হাজার ৮২৭টি। এর মধ্যে করোনা রোগী হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে ৫৫২ জনকে। এ নিয়ে দেশে এ পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন আট হাজার ৭৯০ জন। এ পর্যন্ত ৭৬ হাজার ৬৬টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে বলে জানান তিনি।

বুলেটিনে জানানো হয়, হাসপাতালে থাকা করোনা রোগীদের ভেতর থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন আরো তিনজন। এ নিয়ে এ পর্যন্ত ১৭৭ সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন।আইসোলেশন প্রসঙ্গে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালের আইসোলেশনে নেওয়া হয়েছে আরো ১৬৮ জনকে। এ নিয়ে এ পর্যন্ত আইসোলেশনে আছেন এক হাজার ৬৩২ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন ৫৮ জন এবং এ পর্যন্ত আইসোলেশন থেকে ছাড় পেয়েছেন এক হাজার ২২ জন। সারা দেশে আইসোলেশন শয্যা আছেন ৯ হাজার ৭৩৮টি। এর মধ্যে ঢাকা মহানগরীতে তিন হাজার ৯৪৪টি এবং ঢাকার বাইরে বিভিন্ন হাসপাতালে আছে পাঁচ হাজার ৭৯৪টি।কোয়ারেন্টিন প্রসঙ্গেও তথ্য দেওয়া হয় বুলেটিনে। বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে হোম এবং প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে গেছেন এক হাজার ৫৪৩ জনকে। এ পর্যন্ত উভয় কোয়ারেন্টিনে গেছেন এক লাখ ৯০ হাজার ৪৪৩ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় হোম এবং প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন থেকে ছাড় পেয়েছেন দুই হাজার ৮৫০ জন। এ নিয়ে এ পর্যন্ত এক লাখ ২১ হাজার ৩৪৯ জন। আর ছাড়ের পর বর্তমানে হোম এবং প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে আছেন ৬৯ হাজার ৯৪ জন।সারা দেশের জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে ৬১৫টি প্রতিষ্ঠান। এর মাধ্যমে তাৎক্ষণিকভাবে ৩০ হাজার ৯৫৫ জনকে সেবা প্রদান যাবে বলে জানানো হয় বুলেটিনে।বুলেটিনে আরো জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের স্বাস্থ্য বাতায়ন এবং আইইডিসিআর’র হটলাইনে কল এসেছে ৭২ হাজার ৩১৫টি। এসব কলে যারা কভিড-১৯ বিষয়ে পরামর্শচেয়েছেন তাদেরকে সে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এ নিয়ে এ পর্যন্ত হটলাইনে ৩৮ লাখ ৩৫ হাজার ৩৯১ জনকে কভিড-১৯ বিষয়ে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় মোবাইল ফোন এবং ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ১৪ হাজার ১৬০ জনকে স্বাস্থ্য পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। আর এ পর্যন্ত এ দুই মাধ্যমে ১৬ লাখ ৪০ হাজার ২৬৪ জনকে স্বাস্থ্য পরামর্শ দেওয়া হয়েছে বলে বুলেটিনে জানানো হয়েছে।

সর্বশেষ সংবাদ

Developed by :