Sunday, 12 July, 2020 খ্রীষ্টাব্দ | ২৮ আষাঢ় ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

করোনা আক্রান্তের তথ্য গোপন, উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি

বগুড়ায় করোনা আক্রান্তের তথ্য গোপন করে জন্ডিস রোগী সেজে আত্মগোপনের চেষ্টা করেন এক যুবক (২৩)। পরে নন্দীগ্রাম স্বাস্থ্য বিভাগ ও পুলিশ শুক্রবার (২৯ মে) দুপুরে উপজেলার দাড়িয়াপুর গ্রামের চাচার বাড়ি থেকে উদ্ধার করে তাকে অ্যাম্বুলেন্সের মাধ্যমে মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে পাঠায়। বর্তমানে ওই যুবক আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি রয়েছে।এ ঘটনায় স্থানীয় প্রশাসন চারটি বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করেছে। নন্দীগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. তোফাজ্জল হোসেন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, সারিয়াকান্দির ওই ব্যক্তি ও তার স্ত্রী ঢাকায় একটি মোজা কারখানায় চাকরি করেন। তিনি করোনা উপসর্গ নিয়ে ঈদের আগের দিন ২৪ মে বগুড়া শহরের উত্তর চেলোপাড়ায় শ্বশুরবাড়িতে আসেন। ঈদের পরদিন ২৬ মে বগুড়া জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালের পিসিআর ল্যাবে নমুনা দিয়ে আবার শ্বশুরবাড়িতে যান। ওই রাতে ফোনে জানতে পারেন তিনি করোনাভাইরাস আক্রান্ত। পরে শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাকে থাকতে দিতে রাজি না হওয়ায় তিনি নন্দীগ্রাম উপজেলা দাড়িয়াপুর গ্রামে চাচার বাড়িতে যান। সেখানে গিয়ে জানান, তার জন্ডিস হয়েছে। পরিবারের লোকজন তার কথায় বিশ্বাস করে কবিরাজ ডেকে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। কিন্তু এলাকার লোকজন ঢাকা ফেরত হওয়ায় তাকে চাচার বাড়িতে থাকতে দিতে রাজি হয়নি। পরে শুক্রবার দুপুরে নন্দীগ্রাম উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ ও স্বাস্থ্যকর্মীরা অ্যাম্বুলেন্সে নিয়ে দাড়িয়াপুরের ওই বাড়িতে যায়। তখন গ্রামে হইচই পড়ে যায় ও গ্রামবাসীদের সন্দেহ সত্য হয়।

Developed by :