Saturday, 26 September, 2020 খ্রীষ্টাব্দ | ১১ আশ্বিন ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

কমলগঞ্জে মাদকের আস্তানায় পুলিশের হানা

মো: মোস্তাফিজুর রহমানঃ
চলো যাই যুদ্ধে মাদকের বিরুদ্ধে এর শ্লোগানকে সামনে রেখে মৌলভীবাজারের পুলিশ সুপারের নির্দেশে কমলগঞ্জ উপজেলায় মাদক বিরোধী অভিযান চালাচ্ছে কমলগঞ্জ থানা পুলিশ। গত এক মাস ধরে মাদকের আড্ডাগুলোতে পুলিশ প্রতিরাতে হানা দিচ্ছে। পুলিশি অভিযানে ২১ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে ১৩টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এসময় উদ্ধার করা হয় ২৫ পিস ইয়াবা ১০০ লিটার চোলাই মদ, ১৬টি গাঁজার গাছ, দেড় কেজি গাঁজা, জাওয়া ২২০ লিটার ও স্পিট ৫ লিটার। পুলিশের দাবী, মাদক অভিযানে মাদকরে সাথে জড়িতরা আর্তগোপনে রয়েছে। অপর দিকে সচেতন নাগরিকরা বলছেন, মাদক নিমূর্ল করতে হলে চুনুপুটি নয়, রাগববোয়ালদের আইনের আওতায় আনতে হবে।
পুলিশ সূত্র জানায়, বিগত সময়ে মাদকের বিরুদ্ধে আমরা কাজ করলেও মৌলভীবাজার পুলিশ সুপার যোগদানের পর থেকেই মাদক বিরোধী অভিযান জোরালো হয়েছে। চলো যাই যুদ্ধে মাদকরে বিরুদ্ধে এরই ম্লোগানকে সামনে রেখে কমলগঞ্জ থানা পুলিশ কমলগঞ্জ উপজেলাকে মাদকমুক্ত করতে জুলাই মাস থেকে কাজ শুরু করেছে। কমলগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন মাদককারবারীরা পুলিশি অভিযানে তটস্ত। বিগত এক মাসে চাবাগানসহ মাদকের আড্ডাগুলোতে খবর পাওয়া মাত্রই অভিযান পরিচালিত হচ্ছে। জুলাই মাসে ২১ জন কে আটক করা হয়। ১৩টি মামলা হয়েছে। এসময় উদ্ধার করা হয়  ২৫ পিস ইয়াবা ১০০ লিটার চোলাই মদ, ১৬টি গাঁজার গাছ, দেড় কেজি গাঁজা, জাওয়া ২২০ লিটার ও স্পিট ৫ লিটার।

 

ফাইল ছবি


কমলগঞ্জ পুলিশের মাদক বিরোধী অভিযান নিয়ে সচেতনমহল নানা মত রয়েছে। অনেকইে বলেছেন , উপজেলার শমসেরনগর, রহিমপুর,কমলগঞ্জ সদরসহ বিভিন্ন চা বাগানে মাদকের ব্যবহার বাড়ছে। যদিও পুলিশ চা বাগানে অনেকই আটক হয়েছে। জনশ্রুতি রয়েছে, মাদক ব্যবসারা সাথে স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ বিভিন্ন প্রভাবশালী ব্যক্তি পিছনে মদদ দিচ্ছেন বা ব্যবসার সাথে জড়িত।  মাদক নিমুর্ল করতে হলে মুলহোতাদের ধরতে হবে। তাহলে বন্ধ হবে মাদক ব্যবসা।

অপর দিকে পুলিশের দাবী, কমলগঞ্জে আগের চেয়ে মাদক ব্যবহার কমে এসেছে। আগামীতে আরো কমে আসবে।
কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনর্চাজ  আরিফুর রহমান বলেন, পুলিশে সুপারের নির্দেশে মাদক বিরোধী অভিযান চলছে। যেখানে মাদক সেখানে পুলিশ। শতভাগ মাদক মুক্ত ঘোষনা করা হবে শীঘ্রই।

Developed by :